ষড়যন্ত্র মূলক কর্মকান্ডে জড়িত থাকায় লুসি খানকে বহিষ্কার

0
26

‘নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম’, চট্টগ্রাম বিভাগের প্রধান উপদেষ্টা ডা. শাহাদাত হোসেনকে জড়িয়ে ষড়যন্ত্র মূলক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার সুস্পষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে ডা: লুসি খানকে ফোরামের প্রাথমিক সদস্যপদ সহ সকল পর্যায়ের পদ থেকে ‘নির্দেশক্রমে বহিষ্কার করা হয়েছে’ বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন ফোরামের চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক সাংবাদিক জাহিদুল করিম ও সদস্যসচিব ডা: বেলায়েত হোসেন ঢালী। লুসি খান নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন।

সর্বশেষ গত ২৯ মার্চ চাঁদাবাজি ও অপহরণের অভিযোগ লুসির দায়ের করা মামলায় মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা: শাহাদাতের রিমান্ড চাওয়া হলে আদালত তা নামঞ্জুর করেছে আালত। অনুসন্ধানে প্রকাশ, ডা. শাহাদাতের গ্রামের বাড়ির এক পরিচিতজনকে বিদেশ পাঠানোর নাম করে টাকা নিয়ে প্রতারণা করেন ডা: লুসি।

এ বিষয়ে বিএনপির এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান , বিষয়টি নিয়ে আমরা অন্তত ছয় মাস ধরে জানি। ডা. শাহাদাত হোসেনের এক আত্মীয় থেকে কানাডা নিয়ে যাওয়ার নামে ৭ লাখ টাকা নেন লুসি। বিষয়টি নিয়ে বিচার দেয়া হলে শাহাদাত এর কাছে কান্নাকাটি করে ক্ষমাও চান লুসি। শাহাদাত টাকা ফেরত দিতে বলেন। সে অনুযায়ী দেয়া হয়েছে চেক। কিন্তু পরবর্তীতে এসে সেই চেক ছিনিয়ে নেওয়ার মামলা করা হয়‌ । সচিব মহিউদ্দিনকে ডা. শাহাদাত হোসেন অপহরণ করেছেন বলে অভিযুক্ত করা হয়। অথচ গত চসিক নির্বাচনের আগে ডা: লুসির চিকিৎসাসেবা ক্যাম্পে প্রধান অতিথি হন ডা: শাহাদাত।

ডা: লুসি খান এর পরিচিতজনেদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে বিএনপির চট্টগ্রাম মহানগরীর সর্বশেষ কমিটির সহ মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ডা: লুসি খান ঐতিহ্যবাহী পরিবারের সন্তান হলেও মানব পাচারে জড়িত অভিযুক্ত। বিদেশ পাঠানোর নাম করে মানুষের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। প্রতারণার অভিযোগে মামলাও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।‌

” জীবন চিত্র” এনজিওটি মূলত সমাজসেবার আড়ালে আদম ব্যবসার একটি ঠিকানা -যোগ করেন এই বিএনপি নেতা।বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সাথে মানব পাচারের টাকা লেনদেন ও আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে এই নেত্রীর বিরুদ্ধে ।

জিয়া নামে এক ছাত্রদল নেতার কাছ থেকেও বিদেশ পাঠানোর নাম করে দফায় দফায় টাকা চান লুসি। প্রথম কিস্তিতে চেয়েছিলেন’ দেড় লক্ষ টাকা।

রামপুর ওয়ার্ডের ছাত্রদল নেতা রাশেদুল জানান, আহাদ নামের এক যুবক ও তার এক বন্ধুর কাছ থেকে কানাডা নেওয়ার নামে আট লক্ষ টাকা নেন লুসি।

কিন্তু এক বছরেও সেই টাকা পুরোপুরি ফেরত দেননি উল্টো। হুমকি দেয়া হয় তাকে।উপর্যুপরি বাসা ও চেম্বারে গিয়ে কিছু টাকা উদ্ধার করা হয়েছিল।‌

এ ধরনের ঘটনা রয়েছে অসংখ্য । চট্টগ্রামের বিএনপি ঘরানার প্রায় সবাইই জানেন, সাম্প্রতিক সময়ে লুসিকে রাজনৈতিকভাবে পৃষ্ঠপোষকতা দেন ডা. শাহাদাত। সে কারনে ক্ষতিগ্রস্তরা শাহাদাতকে অভিযোগ জানান লুসির বিরুদ্ধে । এ নিয়ে লুসিকে শাসিয়েও দেন ডা. শাহাদাত। এর পর থেকেই শুরু বিরোধ…