সাত বছরে এফএমসি ডকইয়ার্ডের পথচলা শুরু

0
6

সাত বছরে পদার্পণ করল দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান এফএমসি ডকইয়ার্ড।kj 9
এ উপলক্ষে বুধবার বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় প্রতিষ্ঠানটির কর্পোরেট অফিস, বোয়ালখালীর পশ্চিম গোমদণ্ডীর ডকইয়ার্ড ও ঢাকা অফিসে।

এফএমসির করপোরেট অফিসে কেক কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন এফএমসি ডকইয়ার্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মদ ইয়াছিন চৌধুরী।
এসময় উপস্থিত ছিলেন পরিচালক (অর্থ) খাতুনে জান্নাত, আম্বিয়া গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল হাসেম রাজা, পরিচালক (বিজনেস ডেভেলপমেন্ট) মোহাম্মদ ইয়াসির রাব্বী, পরিচালক (প্রশাসন) সৈয়দ মোহাম্মদ শাহেদ, পরিচালক (মিডিয়া) মহসীন কাজী, বাংলা অ্যাপারেলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গিয়াস উদ্দিন হেলাল ও এফএমসি স্পোর্টসের সাধারণ সম্পাদক আবু শামা বিপ্লব।

মোহাম্মদ ইয়াছিন চৌধুরী বলেন, একদল নিষ্ঠাবান কর্মীর অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে ছয় বছরের সাফল্যের ধারায় আমরা দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্পে শীর্ষস্থান দখল করতে সক্ষম হয়েছি। সাত বছরের যাত্রায় আমরা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাফল্যের সিঁড়িতে উঠতে শুরু করেছি। ইনশাআল্লাহ এ যাত্রায়ও আমরা সফল হবো।

তিনি বলেন, ব্যাংকঋণের সুদসহ সার্বিকভাবে সরকারি প্রণোদনা পেলে আমরাসহ দেশের অন্যান্য জাহাজ নির্মাণ প্রতিষ্ঠান জিডিপিতে আরও বেশি অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

ডকইয়ার্ডে কেক কেটে অনুষ্ঠান শুরু করেন পরিচালক পঙ্কজ দত্ত ও ক্যাপ্টেন মহিবুল্লাহ মোরশেদ। ঢাকা অফিসে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন পরিচালক কাজী মোহাম্মদ মোরশেদুল আলম।

কর্ণফুলীর কোলঘেঁষে বোয়ালখালীর পশ্চিম গোমদণ্ডীতে এফএমসি ডকইয়ার্ডের যাত্রা শুরু হয় ২০০৯ সালের ৯ ডিসেম্বর। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটি অয়েল ট্যাংকার, ড্রেজার, কনটেইনার ভ্যাসেল, ফিশিং ভ্যাসেল, রিসার্স ভ্যাসেল, ক্রুজ ভ্যাসেল, সার্ভে ভ্যাসেল, ফেরি, টাগ বোট ও পন্টুন নির্মাণ করে দেশে-বিদেশে সরবরাহ করে আসছে। অফসোর ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মাধ্যমে পাওয়ার প্ল্যান্ট, জেটি, ট্যাংক টার্মিনাল নির্মাণে সফলতা দেখিয়ে চলেছে। এ প্রতিষ্ঠানের রয়েছে দেশের সর্বাধিক মেরামত ক্ষমতা সম্পন্ন স্লিপওয়ে। যেখানে বড় বড় সমুদ্রগামী জাহাজ মেরামত করা হয়।