‘‘জীবনের সবকিছুতে একাগ্রতা ও সমন্বয়ের মাধ্যমে অর্জন করতে হয়’’

0
11

রাহাত আলী স্কুল
পটিয়া প্রতিনিধি: প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেছেন, জীবনের সবকিছুতে একাগ্রতা ও সমন্বয়ের মাধ্যমে অর্জন করতে হয়। আমার জীবনে আমি ২৮ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান করেছি। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়মিত দেখবাল করতে হয়। যারা শিক্ষক তাদেরকে ক্লাসে পাঠদানের আগে ঘরে শিক্ষাচর্চা করতে হয়। ফলে শিক্ষার্থীরা পূর্ণাঙ্গ শিক্ষা পায়। শিক্ষার যোগত্যা দু’ধরনের। একটি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা অন্যটি প্রাকৃতিক শিক্ষা। প্রকৃতি আমাদের অনেক কিছু শিক্ষা দেয়। তিনি বর্তমান সরকারের শিক্ষা ক্ষেত্রে নানান ধরনের ভূমিকার কথা তুলে ধরে বলেন, ডিজিটালাইজের মাধ্যমে আধুনিক শিক্ষা বর্তমান আধুনিক শিক্ষাকে প্রথম কাতারে নিয়ে আসা হয়েছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা এ ধরনের শিক্ষামূলক কাজকে প্রধান্য দেয়ায় আজ দেশের মানুষ শিক্ষিত হতে চলেছে। এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে আগামীতে সকলকে একযোগে কাজ করে যেতে হবে।

তিনি শুক্রবার পটিয়া পৌর সদরের আবদুস সোবহান রাহাত আলী হাই স্কুলের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব ও প্রাক্তন ছাত্র পূর্নমিলনী অনুষ্ঠানের প্রথম অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। শতবর্ষ উৎসব কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী ও পৌর মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ও জেলা আ’লীগের সহ সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, সাবেক সাংসদ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ড.কাজী আহমদ নবী, চট্টগ্রাম সিটি কলেজের বাংলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক আবদুল আলীম, পৌরসভা আ’লীগের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার সামশুদ্দিন আহমেদ, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বদিউল আলম, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সোলায়মান, উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) গৌতম বাড়ৈ, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আইয়ুব বাবুল। প্রথম অধিবেশনের আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ও রাজনীতিবিদ স.ম ইউনুছ।

আলোচনা সভা পূর্বে দিনব্যাপী শতবর্ষ পূর্তি উৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। উদ্বোধন শেষে প্রাক্তন ছাত্রদের সাজসজ্জিত এক র‌্যালি ঢাক ঢোল বাজিয়ে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া পৌর সদরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন করে। উক্ত শতবর্ষ পূর্তি উৎসব প্রাক্তন ছাত্রদের মিলনমেলায় পরিনত হয়। অনুষ্ঠানের আনন্দ উল্লাস পুরো পটিয়ায় ছাপ পড়ে। সবস্তরের মানুষের মাঝে দেখা যায় আনন্দ উল্লাস। বৃহস্পতিবারও পুরোদিন এ উৎসবকে কেন্দ্র করে সবদিকে যেন একটি আনন্দ উৎসবের সৃষ্টি হয়।

পরে দুপুরের খাবারের পর প্রাক্তন ছাত্রদের স্মৃতি মধুর স্মৃতিচারন উপস্থিতির মধ্যে এক ভিন্ন আমেজ সৃষ্ঠি করে। এতে আলোচনায় অংশ নেন পটিয়ার সাংসদ সামশুল হক চৌধুরী। পরে অনুষ্ঠানের সঙ্গীত শিল্পী সংগীত শিল্পি হৈমন্তি রক্ষিত ও রায়হান আল হাসানের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হয়।