অবিলম্বে বিরোধী দলের সঙ্গে আলোচনায় বসুন

0
41

bnpবিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সরকারের উদ্দেশে বলেছেন, অবিলম্বে বিরোধী দলের সঙ্গে আলোচনায় বসুন। নতুবা নিজেরা সংবিধান সংশোধন করে নির্দলীয় সরকারের ব্যবস্থা পুনর্বহাল করুন। নির্দলীয় সরকার ছাড়া দেশে কোন নির্বাচন হবে না, হতে দেয়া হবে না। তিনি বলেন, আপনারা যদি এতই কাজ করে থাকেন, তাহলে নির্দলীয়, নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন করার সাহস থাকা উচিত। দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে খালেদা জিয়া বলেন, মানুষ এই সরকারের দুঃশাসন থেকে পরিত্রাণ চায়, পরিবর্তন চায়। তাই তাদের বিদায় করতে কঠিন আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদ ভবনে পার্লামেন্ট মেম্বারস ক্লাবের এলডি হল প্রাঙ্গণে আয়োজিত ঢাকা মহানগর বিএনপির ইফতার মাহফিলের আগে এক আলোচনা সভায় খালেদা জিয়া এ কথা বলেন।

খালেদা জিয়া বলেন, সরকার জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে ভয় পায়। তারা জানে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে ৫ সিটি করপোরেশনের মত পরিণতি হবে। উপস্থিত নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে খালেদা জিয়া বলেন, দেশে পরিবর্তন আনতে হবে। এই সরকারকে বিদায় করে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। তাহলেই শান্তি ফিরে আসবে। তিনি বলেন, আপনারা দেখছেন আজকে দেশের কী অবস্থা, দেশের মানুষ বিদ্যুত্ পায় না, গ্যাস পায় না। জিনিসপত্রের দাম সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে।

তিনি বলেন, আমরা নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন ও আলোচনায় বিশ্বাস করি। তাই সরকারকে বলব অবিলম্বে আলোচনার ব্যবস্থা করুন। আমরা বারবার সরকারকে বলেছি, আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাসী, আলোচনায় বিশ্বাসী।

সংক্ষিপ্ত আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা। পরিচালনায় ছিলেন মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আব্দুস সালাম।

ইফতার মাহফিলের মঞ্চে ছিলেন- বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এমকে আনোয়ার, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, বেগম সারোয়ারী রহমান, লে.জে (অব.) মাহবুবুর রহমান, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আসম হান্নান শাহ, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, গাজীপুর সিটি মেয়র অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বরিশাল সিটি মেয়র আহসান হাবীব কামাল, রাজশাহী সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, খুলনা সিটি মেয়র মনিরুজ্জামান মনি। ১৮ দলীয় জোট নেতাদের মধ্যে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল (অব.) অলি আহমদ, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামী, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান লে.জে (অব.) সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান প্রমুখ। আরো উপস্থিত ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদীন ফারুক, যুগ্ম মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।