আল্লামা হাশেমীর (রহ.) ১ম ওরছে পাকের সমাপনী

0
11

অসামান্য জ্ঞান, প্রজ্ঞা ও পান্ডিত্যের কারণে আল্লামা হাশেমী (রহ.) স্মরণীয় হয়ে আছেন

অসামান্য জ্ঞান, প্রজ্ঞা, ধীশক্তি ও অসীম পান্ডিত্যের অধিকারী ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব, ইমামে আহলে সুন্নাত, পীরে কামেল, ওস্তাজুল মুহাদ্দেসীন, সুলতানুল মাশায়েখ, আল্লামা কাযী মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম হাশেমী (রহ.)। শরীয়তের জটিল, কঠিন বিষয়ে সারগর্ব যুক্তিপূর্ণ বিশুদ্ধ ফতোয়া প্রণয়নের মাধ্যমে সুন্নিয়তের তাত্ত্বিক খেদমত আনজাম দিয়েছেন তিনি। তিনি ছিলেন সুন্নি মতাদর্শীদের পথ পদর্শক। সুন্নিয়তভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠাতার প্রেরণা হয়ে থাকবেন তিনি। আঞ্জুমানে মুহিব্বানে রাসূল (দ.) গাউছিয়া জিলানী কমিটি বাংলাদেশ ও গাউছিয়া হাশেমী কমিটি বাংলাদেশের যৌথ ব্যবস্থাপনায় ইমামে আহলে সুন্নাত আল্লামা কাযী মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম হাশেমীর (রহ.) তিন দিনব্যাপী ১ম সালানা ওরছে পাকের সমাপনী দিবস ২ জুন বায়েজীদ জালালাবাদ হাশেমী নগরস্থ দরবারে হাশেমীয়া আলিয়া শরীফ সম্মুখ ময়দানে বক্তারা এসব কথা বলেন। শাহ্জাদা কাযী মুহাম্মদ আবুল এরফান হাশেমীর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার অধ্যক্ষ আল্লামা সৈয়দ মুফতি অছিয়র রহমান আলকাদেরী (মু.জি.আ)। শাহ্জাদা কাযী মুহাম্মদ আবুল ফোরকান হাশেমীর সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন আন্তর্জাতিক ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা আবু সুফিয়ান খাঁন আবেদী আলকাদেরী। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন আল্লামা খাইরুল বশর হক্কানী, পীরে তরিক্বত আল্লামা শাহ্ আলম নঈমী, কাজী সোলাইমান চৌধুরী, আল্লামা মাসউদ হোসাইন আলকাদেরী, আল্লামা আবুল আসাদ মুহাম্মদ জুবাইর রজভী, আলহাজ¦ মুহাম্মদ নঈমুল ইসলাম পুতুল, অধ্যক্ষ আল্লামা জাফর আলম হেলালী, ড. খলীলুর রহমান, উপাধ্যক্ষ আল্লামা কাযী মুহাম্মদ কামরুল হাসান, আল্লামা ফরিদুল আলম রেজভী, আল্লামা ইউনুচ রজভী, মাওলানা ক্বারী আহমদ রেযা, শাহ্জাদা কাযী হাফেজ মুহাম্মদ মহিউদ্দিন হাশেমী, শাহ্জাদা কাযী মুহাম্মদ নঈমুদ্দীন হাশেমী, শাহ্জাদা কাযী মুহাম্মদ শরফুদ্দীন হাশেমী, শাহ্জাদা কাযী মুহাম্মদ বাহাউদ্দিন হাশেমী, শাহ্জাদা কাযী মুহাম্মদ জিয়াউদ্দিন হাশেমী, হাফেজ মুহাম্মদ গোলাম কিবরিয়া, মাওলানা ওমর ফারুক নঈমী, মাওলানা গাজী মঈনুদ্দীন রেজভী, মাওলানা জাহেদুল ইসলাম কাদেরী, মুহাম্মদ হাবিবুল্লাহ, মুহাম্মদ মাছুমুর রশিদ কাদেরী। বক্তারা আরো বলেন, যারা লোভ-লালসার উর্ধ্বে উঠে দেশ-জাতির ভবিষ্যত চিন্তা করেন, মানুষের কথা ভাবেন, অন্যকে জ্ঞানের আলোয় প্রজ্জ্বলিত করেন, সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে মত্ত হন এবং সত্য-ন্যায়ের পথে অবিচল থাকেন, তারা মৃত্যুর পর অমর হয়ে থাকেন। আহলে সুন্নাত চেয়ারম্যান ইমাম হাশেমী (রহ.) তেমন একজন ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন। যিনি দুনিয়া থেকে মৃত্যু বরণ করলেও যুগ যুগ ধরে বেঁচে থাকবেন মানুষের অন্তরে। তিনি কখনও অন্যায়ের সাথে আপোষ করেন নাই, সারা জীবন ইসলামের সূফিবাদি অহিংস উদার মতাদর্শের প্রচার করেছেন, ইসলামী শিক্ষা বিস্তারে নিরন্তর ভূমিকা রেখেছেন। এককথায়, সত্য ও ন্যায়ের মূর্তপ্রতীক ছিলেন আল্লামা হাশেমী (রহ.)।