সিআরবিতে নয়, পরিত্যক্ত জমিতে হাসপাতাল নির্মান করুন

0
3

চট্টগ্রামের সিআরবি হচ্ছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত একটি ঐতিহাসিক স্থান। এখানকার স্থাপনা ধ্বংস, পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট ও গাছ নিধন কোনোভাবে কাম্য নয়।

এই ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা ধ্বংস ও পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করে কোনো প্রকল্প বাস্তবায়ন করলে তা আমরা মানতে পারিনা। চট্টগ্রাম নগরীতে হাসপাতাল করার মতো রেলওয়ের অনেক জমি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। যা প্রভাবশালীরা দখল করে আছেন। সেগুলো উদ্ধার করে হাসপাতাল নির্মান করা সম্ভব। তাই সিআরবিতে নয়, পরিত্যক্ত জমিতে হাসপাতাল নির্মান করুন। অবিলম্বে এই প্রকল্প বাতিল করে শতবর্ষী গাছ ও জীববৈচিত্র্য রক্ষার জন্য এলাকাটিকে বিশেষ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ এলাকা এবং শতবর্ষী গাছগুলোকে স্মারক বৃক্ষ হিসেবে ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি। শুক্রবার ১৬ জুলাই বৃষ্টি ভেজা বিকালে চট্টগ্রামের ফুসফুস খ্যাত সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মানের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সিআরবি এলাকায় ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেন্ট জাসস্টিস’র সহযোগিতায় ইয়ুথনেট চট্টগ্রাম ও এ্যাক্টিভিস্টার উদ্যাগে প্রতিবাদী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় অতিথির বক্তব্যে সাংবাদিক ও পরিবেশ কর্মী মুজিব উল্ল্যাহ্ তুষার বলেন, পৃথিবীকে মানুষের বসবাসের উপযোগী করতে বৃক্ষের ভূমিকা অনেক। বনাঞ্চল না থাকলে পৃথিবী হয়ে ওঠত মরুভূমি এবং মানুষের অস্তিত্ব হতো বিপন্ন। পরিবেশ বিপর্যয়ের জন্য আজ প্রতিদিন বজ্রপাতে মানুষ মারা যাচ্ছে। বড় বড় গাছ বজ্রপাত প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বাসযোগ্য পৃথিবী গড়তে বৃক্ষ নিধন নয়, বৃক্ষ রোপনই আমাদের লক্ষ্য হওয়া উচিত। তাই আসুন গাছ লাগাই, গাছের পরিচর্যা করি এবং পরিবেশ রক্ষায় সচেষ্ট হই।
ইয়ুথনেট চট্টগ্রাম টিম সমন্বয়কারী মো.নাহিদের সভাপতিত্বে ও মাস্টার ফ্যাসিলিটর সুস্মিতা সুলতানা সস্বর্নালী’র পরিচালনায় উক্ত মানববন্ধন কর্মসূচীতে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন মো.কাউসার,উজ্জ্বল, আব্দুল্লাহ জিসান,রোমিজা সুলতানা, তানভীর মাহমুদ প্রমুখ।