সদর দরজা

0
558

সদর দরজা হলো মূল বাড়ী বা ঘরের প্রথম বা প্রধাণ ফটক, যা মানুষের প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা দিতে সক্ষম। সদর দরজা সদর দরজাসাধারণত সাত ফুট উচু এবং প্রয়োজন মতো চওড়া হতে পারে। দরজার মুখে চৌকাঠ লাগিয়ে তাতে পাল্লা সংযোগ করা হয়, যেন প্রয়োজনে দরজা বন্ধ বা খোলা যায়। এই পাল্লা স্লাইডিং বা সুইং দুই রকমই হতে পারে। সুইঙের পাল্লা সংখ্যা এক বা একাধিক হতে পারে এবং সেই সংখ্যা দিয়েই তার নামকরণ করা হয়। এছাড়া আরো একটি বিশেষ টাইপের দরজা হলো রিভলভিং দরজা।

বাংলাদেশের স্থাপনাতে প্রাচীন কাল থেকেই দুই পাল্লা বিশিষ্ট সুইং দরজা ব্যবহার হয়ে আসছে। তবে তৈরী এবং ব্যবহার উপযোগীতার কারণে এখন বাসা বাড়ী বা এ্যাপার্টমেন্ট ভবনে একপাল্লার সুইং দরজাই বেশি ব্যবহৃত হয়। স্লাইডিং দরজা সাধারণত বড় বড় বিপণী বিতান বা বাণিজ্যিক ভবনে ব্যবহৃত হয় বেশি। অবাসিক ভবনে শোয়ার জায়গা থেকে লাগোয়া বারান্দাতে যাওয়ার জন্য স্লাইডিং দরজা ইদানিং বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে কারণ সেক্ষেত্রে দরজাটি জানালার কাজও করে। আর রিভলভিং দরজা সাধারণত পার্ক বা উন্মুক্ত পরিসরে ব্যবহার করা হয়। নির্মাণ উপকরণ হিসাবে কাঠ, লোহা, প্লাস্টিক, এ্যালুমিনিয়ান আর গ্লাসের ব্যবহারই বেশি। দরজা কোন পরিসরের নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তা নিশ্চিত করে।

দরজা তৈরীতে এখন শুধু নিরাপত্তার দিকেই দৃষ্টি দেয়া হয়না, পাশাপাশি এর সৌন্দর্য্য প্রকাশকেও সাধুবাদ জানানো হয়। কোন এপার্টমেন্ট বা বাড়ীর মালিক তার সদর দরজাটিকে যথাসম্ভব আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন করে তুলে নিজের রুচিবোধের প্রকাশ ঘটায়। বর্তমানে আমাদের দেশে বিভিন্ন ফার্ণিচারের শোরুমে আকর্ষণীয় রেডিমেড দরজা পাওয়া যায়। সাধারণত কাঠ, প্লাস্টিক বা লেমিনেটিং ওড, লোহা সমন্বয়ে একটি দৃষ্টি নন্দন সদর দরজা তৈরী হয়। নিজের রুচিবোধের রসায়নে আপনার সদর দরজার ডিজাইন বা ডেকোরেশন অনন্য অনুকরণীয় হয়ে উঠতে পারে। এছাড়া ক্যাটালগ দেখে পছন্দমতো দরজার ডিজাইন বেছে নেয়া যায়। সদর দরজা মূলত এক বা দুই পাল্লার সুইং দরজাই হয়ে থাকে। এই দরজায় ইচ্ছামতো নিরাপত্তা সামগ্রী সংযোজন করা যায়। পুরাণ ঢাকার নবাবপুর রোডে সদর দরজার জন্য বিভিন্ন প্রকার নিরাপত্তা ইক্যুইপমেন্ট পাওয়া যায়, যা নিরাপত্তা বিধানের পাশাপাশি নান্দনিকতাও প্রকাশ করে।

আপনার এপার্টমেন্ট বা বাড়ীর সদর দরজা পেরিয়ে আসা অতিথিটি যখন আপনার রুচিবোধের তারিফ করবে তখন আপনার ভালো লাগবে নি:সন্দেহে। কিন্তু শুধু সৌন্দর্য্যবোধ কিন্তু সদর দরজার মূল বিষয় নয়। সদর দরজার নিরাপত্তা সংযোজন গুলি আপনাকে সম্পূর্ণ প্রোটেক্ট করতে সক্ষম কিনা এটাই সবার আগে বিবেচ্য। বর্তমানে সদর দরজায় ব্যবহারের জন্য অনেক আধুনিক প্রযুক্তি আছে, যা আপনার ঘরে চোর ডাকাত বা অবাঞ্চিতদের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে খুবই কার্যকর। যেমন সিসিটিভি ক্যামেরা, পিএবিএক্স সিস্টেম, সিকিউরি কোড বা পাঞ্চ মেশিন ইত্যাদি। এছাড়া গুরুত্ব বুঝে অন্যান্য আর্টিফিসিয়ালি ইন্টিলিজেন্সও এপ্লাই করা হয় সদর দরজায়। যা ফিঙ্গার প্রিন্ট বা মানবদেহের অন্য কোন স্বতন্ত্র অংশের ডিজিটাল কোড দ্বারা পরিচালিত হয়।

সদর দরজার প্রচলিত অবয়বে হয়তো অনেক পরিবর্তন এসেছে কিন্তু আদি কাল থেকে অদ্যাবদি এর গুরুত্ব রয়ে গেছে সমান ভাবে। তাই শিল্প আর প্রযুক্তির মেল বন্ধনে আপনার সদর দরজাটি হয়ে উঠতে পারে সৌন্দর্য্য ও রুচিবোধ প্রকাশের মাধ্যম, নিরাপত্তার অতন্দ্র প্রহরী।